সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৮:১৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
এক বিন্দু অক্সিজেন মানুষকে বাঁচাবে, এক টুকরো স্বপ্ন শিশুকে বাঁচাবে ! শৈশব পেড়িয়ে কৈশোর দেখিনি, কালকে আমার বিয়ে! শোকের মাসে জবি সাংবাদিকদের নির্বাচন, গঠনতন্ত্র বহির্ভূত কার্যক্রমে ফলাফল স্থগিত বামনায় সাংবাদিকদের মাঝে কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতার করোনা সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ চরাঞ্চল ঘুরে করোনা টিকার ফ্রি নিবন্ধন করাচ্ছেন ইউপি চেয়ারম্যান চরফ্যাশনে যুবককে ফাঁসাতে গিয়ে পুলিশ অবরুদ্ধ তৃতীয় দিনেও বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে বাড়ি ফিরেছে জবি শিক্ষার্থীরা “সেরা রাঁধুনীতে ফাষ্ট রানার্স আপ নাদিয়া নাতাশা” ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সাত কলেজের ভর্তি পরীক্ষা অক্টোবরে করোনা মোকাবিলায় মোদির মন্ত্রিসভায় রদবদল, শপথ নিলেন ৪৩ মন্ত্রী

ঢাকা মহানগর দক্ষিন যুবলীগের নেতৃত্বে আলোচনায় যারা

আলোরদেশ ডেস্ক
  • প্রকাশিত হয়েছেঃ বৃহস্পতিবার, ৩১ অক্টোবর, ২০১৯
  • ৩৭২২ বার পড়া হয়েছে

আলোর দেশ, ঢাকা :


রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আগামী ২৩ নভেম্বর বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির ৭ম সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এর পরপরই ঢাকা মহানগর দক্ষিন যুবলীগের সম্মেলন হবে বলে আশা বাধছেন নেতাকর্মীরা।

দীর্ঘমেয়াদে (টানা তৃতীয়বার) আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রক্ষমতায় থাকায়, এর সুযোগ নিয়ে যুবলীগের অনেক নেতা বানিয়েছেন টাকার পাহাড়। দুর্নীতি, ক্যাসিনো, মাদক ব্যবসা, চাঁদাবাজী, টেন্ডারবাজীসহ নানা অপকর্মে যুক্ত থাকায় সমালোচিত হয়েছেন সংগঠনটির কতিপয় নেতা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আদেশে শুদ্ধি অভিযানে এমন অপরাধমুলক কর্মকান্ডে জড়িত থাকায় গ্রেফতার হয়েছেন অনেকে। এর সুবাদে সংগঠন থেকে কয়েকজনকে বহিষ্কারও হতে হয়েছে । যারা বহিষ্কার কিংবা গ্রেফতার হননি তারাও আতঙ্কে আছেন । এ কারণে এবারের সম্মেলনে পদপ্রত্যাশী অনেক নেতা প্রার্থিতা ঘোষণা নিয়ে ভয়ে আছেন। তবে এর মাঝে ক্লিন ইমেজের প্রার্থীরা অনেকটাই চাঙ্গা। তারা নিয়মিত দলীয় প্রোগ্রাম করে যাচ্ছেন। নেতাকর্মীদের নিয়ে নিয়মিত পার্টি অফিসে অসছেন। অনানুষ্ঠানিকভাবে বিভিন্ন মাধ্যমে প্রার্থিতার বিষয়ে জানান দিচ্ছেন।

এবারের নেতৃত্ব বাছাইয়ের ক্ষেত্রে অপকর্ম ও বিতর্কিত কর্মকাণ্ডে যুক্ত ও অনুপ্রবেশকারীরা যাতে কোনো ভাবেই নেতৃত্বে না আসতে পারে এমন দাবি জানান সংগঠনটির তৃণমূলের নেতাকর্মীরা। ক্লিন ইমেজধারী সৎ, অভিজ্ঞ, দুঃসময়ে রাজপথে ছিলেন এবং সাংগঠনিক নেতৃত্বের অধিকারি এমন নেতা চায় তৃনমূল। এরই মধ্যে শীর্ষপদের (সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক) নেতৃত্বে আসতে পদ প্রত্যাশীরা লবিং-তদবির নিয়ে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন। বিভিন্ন কর্মকান্ডে অংশগ্রহন করে নিজেদের অবস্থান জানান দিচ্ছেন। নানা উপায়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নজরে আসার চেষ্টা করছেন পদ প্রত্যাশীরা।

শীর্ষ দুই পদে আলোচনায় যারা :


মাইনুদ্দিন রানা : বর্তমানে ঢাকা মহানগর দক্ষিন যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। দীর্ঘদিন ধরে যুবলীগ রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন।
আনোয়ার ইকবাল সান্টু : তিনি সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। আগের কমিটিতে ছিলেন যুগ্ম সাধারন সম্পাদক পদে ।
রেজাউল করিম রেজা : বর্তমানে তিনি মহানগর দক্ষিন যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।
জাফর আহমেদ রানা : তিনি আছেন মহানগর দক্ষিন যুবলীগের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক পদে।

মোহাম্মদ মাকসুদুর রহমান মাকসুদ : মহানগর দক্ষিন যুবলীগের বর্তমান সাংগঠনিক সম্পাদক তিনি। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক ছিলেন। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রনেতা থাকা অবস্থায় ২০০৪ সালের ১২ ফেব্রুয়ারী বিরোধী দলের (বিএনপি) হামলায় গুরুতর আহত হন তিনি। পরে ১২ ফেব্রুয়ারী তার চিকিৎসার খবর নিতে পুরান ঢাকার সুমনা হাসপাতালে যান শেখ হাসিনা। এছাড়া ২০০৭ সালের ১/১১ সময়ে শেখ হাসিনার মুক্তির আন্দোলন করতে গিয়ে রাষ্ট্রদ্রোহী মামলার আসামী হন মাকসুদুর রহমান। তার বাবা একজন মুক্তিযোদ্ধা।


গাজী সারোয়ার হোসেন বাবু : মহানগর দক্ষিন যুবলীগের বর্তমান সাংগঠনিক সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করছেন। এর আগে সরকারী শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক ছিলেন তিনি। রাজনৈতিক কারনে বেশ কয়েকবার কারাবন্দী হন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান গাজী সারোয়ার হোসেন বাবু।

ইব্রাহিম খলিল মারুফ : তিনি ঢাকা মহানগর দক্ষিন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। তিনি ৫১ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সাবেক সভাপতি ছিলেন।
এমদাদুল হক এমদাদ : মহানগর দক্ষিন যুবলীগের বর্তমান দপ্তর সম্পাদক পদে আছেন। এর আগের কমিটিতে ছিলেনে উপ-দপ্তর সম্পাদক।
সৈয়দ মারশিদ শুভ : সাবেক ছাত্রনেতা সৈয়দ মারশিদ শুভ মহানগর দক্ষিন যুবলীগের বর্তমান স্বাস্থ্য সম্পাদক পদে আছেন।
আরমান হক বাবু : তিনি মহানগর দক্ষিন যুবলীগের প্রচার সম্পাদক পদে আছেন।
খন্দকার আরিফুজ্জামান : জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রনেতা আরিফুজ্জামান মহানগর দক্ষিন যুবলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক পদে আছেন।
সাইফুল ইসলাম আকন্দ : তিনি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক আহ্বায়ক ছিলেন।
এস এম সিরাজুল ইসলাম : তিনি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ছোটবেলা থেকেই ছাত্র রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন।

মহানগর দক্ষিন যুবলীগের নেত্বত্ব কেমন চাই জানতে গেলে মহানগর দক্ষিন যুবলীগের সহ-সম্পাদক ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক শাখাওয়াত হোসাইন প্রিন্স বলেন, সংগঠনের জন্য যারা দীর্ঘদিন কাজ করেছেন তাদের মধ্যে থেকে মেধাবী, সৎ, শিক্ষিত, সাবেক ছাত্রনেতা,পরিশ্রমী ও পরিচ্ছন্নদের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করলে সংগঠন আরো শক্তিশালী ও প্রাণোবন্ত হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© 2020 সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আলোরদেশ লিমিটেড। এই সাইটের কোনো কন্টেন্ট অনুমতি ছাড়া কপি করা বেআইনি।
প্রযুক্তি সহযোগিতায়ঃ UltraHostBD.Com
RtRaselBD