শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:৫৭ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতা হলেন ভোলার রায়হান শিল্পী তাহেরা চৌধুরীর প্রয়াণ দিবস, ৩০০ শিশুকে ছবি আঁকার উপকরণ বিতরণ জিয়া-মোস্তাকচক্র চার নেতাকে হত্যা করে এনেছে আরেকটি কালো অধ্যায় : ড. কামালউদ্দীন এমন কবি-প্রকাশক কি আর ফিরে আসবেন? : কামালউদ্দীন আহমেদ বিইউবিটিতে ২য় বারের মত আইসিপিসি এশিয়া-ঢাকা প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার সমাপ্তি বিধবা নারীর জমি দখলের অভিযোগে ব্যাংকের পরিচালককে আইনি নোটিশ আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬ তম জন্মদিন রিকশা থেকে পড়ে জবি ছাত্রীর মৃত্যু, বন্ধু রিমান্ডে মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা হলেন রাজ গৌরীপুরের গোলাম মোস্তফা বাঙ্গালীর ফিনিক্স পাখি শেখ হাসিনা

এমন কবি-প্রকাশক কি আর ফিরে আসবেন? : কামালউদ্দীন আহমেদ

আলোরদেশ ডেস্ক
  • প্রকাশিত হয়েছেঃ বৃহস্পতিবার, ২৭ অক্টোবর, ২০২২
  • ১৪ বার পড়া হয়েছে
কবি শামসুর রহমান ও প্রকাশক মহিউদ্দীন আহমদ | আলোর দেশ।

অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমেদ

আহমদ পাবলিশিং হাউজের প্রতিষ্ঠাতা আমার বাবা মহিউদ্দীন আহমদ অনেকের বই ই প্রকাশ করেছেন, কিন্তু কিংবদন্তী কবি শামসুর রাহমানের কোনো বই নেই। এ কেমন কথা? আশির দশকের মাঝামাঝি সদ্য এম এ পরীক্ষা দিয়েছি , ফলাফলের অপেক্ষায়। একদিন নিজ থেকেই কবির আওলাদ হোসেন লেইনের বাড়িতে চলে গেলাম। জিন্দাবাহারের খুব কাছেই।

কবির ভাই সাইফুর রহমানের সংগে আমার বাবার খুবই অন্তরঙ্গ সম্পর্ক ছিল। ইউনিভার্সাল প্রেস নামে তাঁদের একটি ছাপাখানা ছিল। সেই প্রেসে বাবা অনেক বইয়ের ছাপার কাজ করাতেন। ছোট বেলায় মনে পডে বেশ কয়েকবার দাওয়াতেও গিয়েছিলাম। অনেক পরে জেনেছি যে এই সাইফুর রহমান চাচার ভাই ই কবি শামসুর রাহমান।

সৌম্য, শান্ত , পরিশীলিত চরিত্রের অধিকারী ছিলেন তিনি। যখন বাবার পরিচয় দিলাম তখন এক ধরনের স্নেহের পরশ পেলাম। বাবার কুশলাদি জিজ্ঞাসা করলেন। বললাম আব্বা তো অনেক বই ই প্রকাশ করেছেন, কিন্তু আপনার কোনো বই নেই। রাজি হলেন, কিন্তু শর্ত ছিল ভালো মানসম্পন্ন প্রকাশনার। কবিতার বই।

তার শিরোনাম ছিল “শিরোনাম মনে পড়ে না”। সাড়াজাগানো অর্থপূর্ণ শিরোনাম। এরকম শিরোনামহীন অনেক কবিতাই তিনি লিখতেন পডতেন। যাদুর মতো টানতেন।”এখন কোথায় যাবো? কার কাছে যাবো? “ ছিল তাঁর উচ্চারণ। বলেছিলেন “এই পথ বড় আঁকাবাঁকা”।

আসলেই আঁকাবাঁকা পথে হেঁটেই তো তিনি আমাদের পথ দেখিয়েছেন এক অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের। এমন এক পথের যাত্রী আমার বাবার সঙ্গে আমিও ছিলাম। আজ অনেকদিন পর সেই শিরোনামের কথা মনে পডলো। তাঁদের কেউই নেই। তাঁদের,োোই

লেখক :
কোষাধ্যক্ষ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© 2020 সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আলোরদেশ লিমিটেড। এই সাইটের কোনো কন্টেন্ট অনুমতি ছাড়া কপি করা বেআইনি।
প্রযুক্তি সহযোগিতায়ঃ UltraHostBD.Com
RtRaselBD