বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:৪৪ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
এক বিন্দু অক্সিজেন মানুষকে বাঁচাবে, এক টুকরো স্বপ্ন শিশুকে বাঁচাবে ! শৈশব পেড়িয়ে কৈশোর দেখিনি, কালকে আমার বিয়ে! শোকের মাসে জবি সাংবাদিকদের নির্বাচন, গঠনতন্ত্র বহির্ভূত কার্যক্রমে ফলাফল স্থগিত বামনায় সাংবাদিকদের মাঝে কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতার করোনা সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ চরাঞ্চল ঘুরে করোনা টিকার ফ্রি নিবন্ধন করাচ্ছেন ইউপি চেয়ারম্যান চরফ্যাশনে যুবককে ফাঁসাতে গিয়ে পুলিশ অবরুদ্ধ তৃতীয় দিনেও বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে বাড়ি ফিরেছে জবি শিক্ষার্থীরা “সেরা রাঁধুনীতে ফাষ্ট রানার্স আপ নাদিয়া নাতাশা” ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সাত কলেজের ভর্তি পরীক্ষা অক্টোবরে করোনা মোকাবিলায় মোদির মন্ত্রিসভায় রদবদল, শপথ নিলেন ৪৩ মন্ত্রী

দিনমজুরের জমি দখল করছেন লালমোহনের ইউপি চেয়ারম্যান

আলোরদেশ ডেস্ক
  • প্রকাশিত হয়েছেঃ বুধবার, ১৩ নভেম্বর, ২০১৯
  • ২৫৩ বার পড়া হয়েছে
লালমোহনের রমাগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা। -আলোর দেশ

আলোর দেশ, ভোলা:

ভোলার লালমোহনের রমাগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফার বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার করে দিনমজুরসহ একাধিক ব্যক্তির জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে।

অভিযোগের ভিত্তিতে জানা যায়, রমাগঞ্জ ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের মৃত কয়ছর আহম্মেদের ছেলে দিনমজুর আবুল কালামের রমাগঞ্জ মৌজার আরএস খতিয়ানের ৪৯৯, ও এসএ ৫১১ খতিয়ানের ৮০ শতাংশ জমি তিনি ওয়ারিশ সূত্রে মালিক হয়ে র্দীঘ দিন ধরে ভোগ দখল করে আসছিলেন। আবুল কালামের কোন প্রভাবশালী আত্মীয় না থাকায় ওই জমির দিকে নজর দেনএই ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান গোলম মোস্তফা।

জানা যায়, কয়েক বছর আগে চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা ক্ষমতার অপব্যবহার করে লাঠিয়াল বাহিনী নিয়ে জোর পূর্বক ওই জমি ভোগ দখল করে আবুল কালামকে এলাকা ছাড়া করেন। বর্তমানে আবুল কালাম পরিবার নিয়ে ঢাকায় দিনমজুরের কাজ করেন।

এছাড়া একই এলাকার মৃত হাজী জেবল হকের ছেলে মো. রফিকুল ইসলামের ক্রয় সূত্রে মালাকিনা ১৩ শতাংশ জমি দখলে নেন ইউপি চেয়ারম্যান মোলাম মোস্তফা।
ভুক্তভোগী রফিকুল ইসলাম অভিযোগ থেকে জানা যায়, গত ১৩/৫/১৯৯৯ ইং সালে রমাগঞ্জ মৌজার এসএ ৫২২ খতিয়ানের রেকর্ডীয় মালিক মুজাম্মেল হকের ১২ জন ওয়ারিশদের কাছ থেকে ১৩ শতাংশ জমি ক্রয় করে ভোগ দখল করে আসছিলেন। কয়েক বছর আগে ইউপি চেয়ারম্যান গোলম মোস্তফা মোজাম্মেল হকের বাকি ৩ ওয়ারিশ থেকে ৫ শতাংশ জমি ক্রয় করেন। গত ১৫ সেপ্টেম্বর ১৯ ইং তারিখে রফিকুল ইসলামের দখলীয় ওই জমি ইউপি চেয়ারম্যান পেশি শক্তির বলে লাঠিয়াল বাহিনী নিয়ে জোর পূর্বক জমি দখল করেন। জমি দখলের ঘটনায় প্রতিবাদ করলে তাকে জীবননাশের হুমকি দেন। এ ঘটনায় প্রতিকার চেয়েও তিনিও জেলা প্রশাসকসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দায়ের করেন।

এদিকে চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফার বিরুদ্ধে সরকারী টাকা আত্মসাৎ, বাৎসরিক এরজিএসপি৩, কাবিখা, কাবিটা, বসয়স্ক-বিধবা ভাতা, ভিজিডি ও জেলেদের তালিকায় অনিয়ম, শালিসের নামে হয়রানি, ইউপি সদস্যদের সাথে অসভ্য আচারণসহ ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। এসকল ঘটনার বিচার চেয়ে ভুক্তভোগীরা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়,বাংলাদেশ পুলিশ প্রধান আইজিপি, দুর্নীতি দমন কমিশনসহ বিভিন্ন দপ্তরে প্রতিকার চেয়ে একাধিক অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এবিষয়ে রমাগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চেয়ারয়্যান গোলাম মোস্তফা জমি দখলের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, আবুল কালামের এলাকায় কো জমি নাই। আমি ওই সকল জমি ক্রয় সূত্রে মালিক হয়েই ভোগ দখল করছি। একটি চক্র আমাকে হেয় করার জন্য এমন অভিযোগ করে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© 2020 সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আলোরদেশ লিমিটেড। এই সাইটের কোনো কন্টেন্ট অনুমতি ছাড়া কপি করা বেআইনি।
প্রযুক্তি সহযোগিতায়ঃ UltraHostBD.Com
RtRaselBD